নিউজিল্যান্ডে মসজিদে হামলাকারী ব্রেন্টন টেরান্ট

60
নিউজিল্যান্ডে মসজিদে হামলাকারী ব্রেন্টন টেরান্ট

বাংলা ডেস্ক( Bangla Desk): খুন করতে যাবার আগে ফেইসবুকে লিখে গেছে, “If I don’t survive the attack, goodbye, godbless and I will see you all in Valhalla”. মানে আমি যদি মারা যাই, তাহলে বিদায়, আবার দেখা হবে ‘ভালহাল্লা’ নামের স্বর্গে।
তাকে জিজ্ঞেস করা হলো, সে খুনের জন্য দুঃখিত কিনা। উত্তরে হাসতে হাসতে বললো – একটুও না, বরং আফসোস হচ্ছে – যদি আরো কিছু বিদেশীকে, আরো কয়জন বিশ্বাসঘাতককে খুন করতে পারতাম।
সে নিজেকে ন্যালসন ম্যান্ডেলার সাথে তুলনা করে লিখেছে – আমিও ন্যালসন ম্যান্ডেলার মত ২৭ বছর পরে জেল থেকে বের হব, আর সেদিন নোবেল প্রাইজ পাব।
খুন করতে যাবার আগে সে ৭৩ পৃষ্ঠার মেনিফেস্টো লিখে অনলাইনে দিয়েছে। তাতে উপরের তিনটা বিষয় খুব স্পষ্ট। সে বিশ্বাস করে, খুন করতে গিয়ে মারা গেলে সে আনন্দের সাথে ভালহাল্লা স্বর্গে চলে যাবে। ভালহাল্লা স্বর্গ হলো – উত্তর জার্মান বা স্ক্যান্ডিনেভিয়ান অঞ্চলের Norse mythology এর একটি স্বর্গ। তাতে আছে – যারা নিজের জাতিকে রক্ষার জন্য শহীদ হবে তারা ভালহাল্লা স্বর্গে স্থান পাবে। বেশ, খুনি মারা গেলে ক্ষতি কি? সে তো শহীদ হচ্ছে। আর তার জন্য ভালহাল্লা স্বর্গে জায়গা রেডি করা আছে। সে বিশ্বাসঘাতকদের পৃথিবী থেকে সরিয়ে দিতে চায়। তো কারা এই বিশ্বাসঘাতক? খুনি যেটি বিশ্বাস করে, যারা সেটা বিশ্বাস করে না, তারাই তার কাছে বিশ্বাসঘাতক। এই ক্ষেত্রে মুসলিম আর বিদেশিরা। আর তিনি ন্যালসন ম্যান্ডেলা কিভাবে? ম্যান্ডেলা যেমন কালো মানুষদের মুক্ত করছেন, তেমনি এই খুনীও নাকি সাদা মানুষদের জন্য কাজ করেছেন।
বাহ, চমৎকার যুক্তিবিদ্যা – বেঁচে থাকলে তার জন্য নোবেল প্রাইজ আছে, মরলে স্বর্গ রেডি। তো হত্যা করো বিশ্বাসঘাতকদের। পৃথিবী হবে শুধু সাদাদের। শুধু ইউরোপিয়ান রক্তের।

একজন ২৮ বছরের মানুষ অনলাইন থেকে তথ্য নিয়ে মানুষ হত্যা করারা কী ভয়ংকর যুক্তি দাঁড় করিয়েছে। হাসি মুখে ৫০ জন মানুষকে খুন করে সেটি লাইভ দেখিয়ে গর্ব করে আদালতে ভি সাইন দেখাচ্ছে। আর এই ঘটনায় একদল মানুষ কাঁদছে, আর একদল বলছে – ব্রাভো।
কী ভয়ংকর সময়ের দিকে এগিয়ে চলছি আমরা! সবকিছুতে স্পষ্ট দুই ভাগ – আমরা বনাম তারা – We vs They. আমরা বেঁচে থাকব আর তোমাদের হত্যা করব। একদিন এই কথাগুলো বলতো শুধু অশিক্ষিত ধর্মান্ধরা, আজ তথাকথিত জ্ঞানী থেকে রাষ্ট্রনায়ক সবাই বলছে – আমরা বেঁচে থাকব, আর তোমাদের হত্যা করব। ইন্টারনেটে ছড়িয়ে দিচ্ছে এই সব কথা। সাথে ঘৃণামাখা ছবি। চলছে ঘৃণার উৎসব। মরছে মানুষ।

[নিউজিল্যান্ডে মসজিদে নিহত মানুষদের প্রতি শ্রদ্ধা ও সমবেদনা]

লেখক: সুজন দেবনাথ (অব্যয় অনিন্দ্য)